আপনি কী মোটা হতে চান? জেনে নিন মোটা হওয়ার সহজ উপায়

রোগা শরীরের মানুষদের নানা সময় বিভিন্ন কথা শুনতে হয়। এমনকি এই শরীরের কারণে নিজের মধ্যে আত্মবিশ্বাসেরও ঘাটতি হয়। এই জন্য শুধু শরীরের মেদ কমাতেই নয়, মেদ বাড়াতেও চায় অনেকেই। তাই দ্রুত মোটা হতে জানতে হবে কিছু নিয়মাবলী। যা মানলে মাত্র ৪ থেকে ৬ মাসের মধ্যে আপনার স্বাস্থ্যে পরিবর্তন আসবে।

আপনি কী মোটা হতে চান? জেনে নিন মোটা হওয়ার সহজ উপায়

ঘরোয়াভাবে মোটা হওয়ার সহজ উপায় –

প্রয়োজনের চেয়ে একটু কম ঘুমান । আপনি ঘুমালে কারো ডাক ছাড়া কতক্ষন পরে আপনার ঘুম ভাংগে সেটা খেয়াল করুন । এটাই আপনার স্বাভাবিক ঘুমের সময় । এই স্বাভাবিক সময়ের চাইতে একটু কম ঘুমান । যেমন ধরুন আপনার স্বাভাবিক ঘুমের সময় যদি ৮ ঘন্টা হয় তাহলে আপনি সাড়ে সাত ঘন্টা ঘুমাবেন । কম ঘুমালে শরীরে হরমোনের কিছুটা পরিবর্তন হয় ফলে ওজন কিছুটা বেড়ে যায় । তবে খুব বেশি কম ঘুমানো উচিত নয় । কারন এর ফলে শরীরে দূর্বলতা ও রোগ দেখা দিতে পারে ।

আপনি কী মোটা হতে চান? জেনে নিন মোটা হওয়ার সহজ উপায়

প্রতিদিন হালকা ব্যয়াম করুন । ভাবছেন ব্যয়াম করলে মোটা হওয়ার বদলে উল্টো চিকন হয়ে যাবেন ? এটা সম্পূর্ন ভূল ধারনা । প্রতিদিন হালকা ব্যয়াম করাটা হলো একটি অন্যতম মোটা হওয়ার সহজ উপায় । ব্যয়াম করলে শরীরের অতিরিক্ত চর্বি গলে যায় কিন্তু শরীরে নতুন কোষ তৈরি হয় এবং পাশাপাশি মাংসপেশী কিছুটা ফুলে ওঠে । তাই মোটা হওয়ার জন্য ব্যয়াম করাটা খুবই গুরুত্বপূর্ন । এছাড়া ব্যয়াম করলে পরিশ্রম হয় তাই ক্ষুদাও কিছুটা বেশি লাগে । আপনি তখন নিজের অজান্তেই কিছুটা বেশি খাওয়া শুরু করবেন ফলে শরীরে নতুন কোষ তৈরি হবে । তবে খুব বেশি বা কঠিন ব্যয়াম করার দরকার নেই । কারন বেশি ব্যয়াম করলে আপনি চিকন হতে শুরু করবেন তাই হালকা ব্যয়ামই যথেষ্ট ।

খাবার গ্রহনের পরিমান বাড়িয়ে দিন । এই পক্রিয়াটি আমরা সবাই জানি । বেশি পরিমানে খাবার খেলে শরীরে নতুন কোষ তৈরি হয় এবং পাশাপাশি অতিরিক্ত খাবার চর্বি হিসেবে জমা থাকে । ফলে এই পক্রিয়ায় সহজেই মোটা হওয়া যায় ।

দুশ্চিন্তা মুক্ত থাকুন । দুশ্চিন্তা করার ফলে মস্তিষ্কের পাশাপাশি শরীরে চাপ পরে । ফলে শরীর দ্রুত শুকিয়ে যায় । তাই স্বাস্থ্য ভালো রাখতে চাইলে দুশ্চিন্তা করা বন্ধ করুন ।

দীর্ঘ সময় শুয়ে-বসে কাটান । দ্রুত মোটা হতে চাইলে দিনের অধিকাংশ সময় শুয়ে এবং বসে কাটান । এতে করে শরীর বিশ্রামে থাকর ফলে অতিরিক্ত চর্বি জমা হবে এবং আপনিও দ্রুত মোটা হতে পারবেন । তবে সারাদিন শুয়ে, বসে কাটালে শরীরে অলসতা ভর করতে পারে যা আপনার ক্ষতির কারন হয়ে দাড়াতে পারে ।

মোটা হওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় খাবার সমূহের তালিকা –

যে সকল খাবার খেলে শরীর মোটা হতে সহায়তা করে সেগুলোর একটি সংক্ষিপ্ত তালিকা আমরা আপনাদের জন্য এখানে তুলে ধরেছি –

আপনি কী মোটা হতে চান? জেনে নিন মোটা হওয়ার সহজ উপায়

আলু – আলু একটি শর্করা সমৃদ্ধ স্বল্প মূল্যের খাবার । আলুতে এমন কিছু উপাদান রয়েছে যা আপনাকে দ্রুত মোটা হতে সাহায্য করবে । বেশি পরিমানে আলু খাওয়া হলো মোটা হওয়ার সহজ উপায় । তাই মোটা হতে চাইলে বেশি করে আলু খান ।

ভাত – ভাতেও রয়েছে প্রচুর পরিমানে শর্করা ও ফ্যাট । রুটি বা আটা জাতীয় খাবার না খেয়ে বেশি করে ভাত খেলে তা আপনাকে দ্রুত মোটা হতে সহায়তা করবে ।

ভাতের ফ্যান/মাড় – ভাতের ফ্যান বা মাড় খেলে তা আপনাকে দ্রুত মোটা হতে সাহায্য করবে এবং পাশাপাশি এতে রয়েছে প্রচুর পরিমান পুষ্টি । সাধারনত আমরা ভাতের মাড় ফেলে দেই কিন্তু যখন আমরা ভাত রান্না করি তখন চাল সিদ্ধ হয়ে চালের অধিকাংশ পুষ্টি উপাদানই এই পানিতে মিশে যায় । মূলত ভাতের চাইতে ভাতের মাড়েই বেশি পুষ্টি থাকে !

ডিম – ডিমে রয়েছে প্রচুর পরিমান আমিষ, শর্করা ও প্রোটিন । সুতরাং মোটা হতে চাইলে নিয়মিত ডিম খান । তবে আমাদের দেশে কিছু মানুষ কাচা ডিমে শক্তি বেশি ভেবে কাচা ডিম খেয়ে থাকে যা সম্পূর্ন ভূল ধারনা । ডিম কাচা খেলে শক্তি না বেড়ে বরং আপনি জীবানু দ্বারা আক্রান্ত হতে পারেন ।

চিনি মিশ্রিত খাবার – চিনি মানুষকে মোটা হতে সাহায্য করে তাই মোটা হতে চাইলে চিনি মিশ্রিত খাবার গ্রহন করুন । তবে অতিরিক্ত চিনি জাতীয় খাবার খেলে তা হৃদরোগ সহ বিভিন্ন রোগ সৃষ্টি করতে পারে । তাই অতিরিক্ত চিনি জাতীয় খাবার গ্রহনের ক্ষেত্রে সচেতন থাকুন ।

বাদাম ও কিসমিস – বাদাম ও কিসমিস মোটা হওয়ার ক্ষেত্রে ভালো ভূমিকা পালন করে । প্রতিদিন সকালে অল্প পরিমানে বাদাম ও কিসমিস খেলে ভালো উপকার পাবেন বলে আশা রাখি ।

শাক- সবজি – পেপে, মিষ্টি কুমড়া, কাচা কলা ইত্যাদি শাক সবজি বেশি পরিমানে খান । এসব শাক সবজি বেশি পরিমানে খেলে শরীরের ওজন বৃদ্ধি পাবে ।

গরুর মাংস – মোটা হতে চাইলে বেশি করে গরুর মাংস খান । বেশি পরিমানে গরুর মাংস খাওয়াটা হলো মোটা হওয়ার সহজ উপায় । দ্রুত নিজের ওজন বৃদ্ধি করতে চাইলে/ মোটা হতে চাইলে নিয়মিত বেশি পরিমানে গরুর মাংস খান । এটি আপনাকে দ্রুত মোটা হতে সাহায্য করবে ।

বেশি তেলের খাবার – যে সকল খাবারে তেল বেশি দিয়ে রান্না করা হয় এমন খাবার বেশি গ্রহন করুন অথবা নিয়মিত খাবারগুলোতেই তেল একটু বেশি দিয়ে রান্না করুন । তেল জাতীয় খাবার শরীরকে দ্রুত মোটা করে তুলতে সাহায্য করে ।

কোমল পানীয় – কোমল পানিয় দ্রুত আপনার শরীরকে মোটা করে তুলবে । তাই মোটা হতে চাইলে বেশি পরিমানে কোমল পানিয় পান করুন । তবে এটাও জেনে রাখা উচিত যে, অতিরিক্ত পরিমান কোমল পানীয় পান করা শরীরের জন্য ভালো নয় ।

ফাস্ট ফুড – ফাস্ট ফুড মানুষের শরীরকে দ্রুত মোটা করে তোলে । তাই মোটা হতে চাইলে পুরি, সিংগারা, পিৎজা, বার্গার সহ বিভিন্ন ফাস্ট ফুড খাবার পরিমান বাড়িয়ে দিন । এটি আপনাকে দ্রুত মোটা করে তুলবে ।

দুধ – বেশি করে দুধ খেলে তা মোটা হওয়ার জন্য গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করে থাকে । সুতরাং মোটা হতে চাইলে নিয়মিত দুধ পান করুন ।

মাখন – মাখনে এমন কিছু উপাদান রয়েছে যা নিয়মিত খেলে শরীরকে মোটা হতে সাহায্য করে । তাই বেশি পরিমানে মাখান খান ।

ঘি – ঘি-ও শরীরকে দ্রুত মোটা হতে সাহায্য করে । তাই দ্রুত মোটা হতে চাইলে ঘি দিয়ে রান্না করা খাবার বেশি করে খান ।

জেনে নিন মোটা হওয়ার সহজ ও কার্যকরী ১০টি উপায়গুলো-

একজন সুস্থ ও স্বাভাবিক পূর্ণবয়স্ক মানুষের প্রতিদিন দিনে ১৮০০ ক্যালরি পরিমাণ খাবার খাওয়া প্রয়োজন। ৩ ঘণ্টা পরপর ৬ বারে ৩০০ ক্যালরি পরিমাণ খাবার খেলে ১৮০০ ক্যালরি পূর্ণ হয়। কিছু না করা বা বিশ্রাম নেয়া অবস্থায়ও ঘণ্টায় ৭৫ ক্যালরি বার্ন হয়। সাধারণত ১বার খাবার খেলে সেটা হজম হতে ২.৩০ থেকে ৩ ঘণ্টা সময় লাগে।

৩ ঘণ্টায় ৩০০ ক্যালরি খাবার হজম হয়ে গেলে ৩ ঘণ্টা পরপর সুস্থ ও স্বাভাবিক শরীরের আবার নতুন খাবারের প্রয়োজন হয়। প্রতিবার ৩০০ ক্যালরির বেশি খেলে শরীর স্বয়ংক্রিয়ভাবে অতিরিক্ত ক্যালরিগুলো শরীরে ফ্যাট হিসেবে জমা করে রাখে। মোটা হতে চাইলে ঘুম ছাড়া বাকি সময় প্রতিবার ৩০০ ক্যালরির বেশি খাবার গ্রহণ করতে হবে।

  • ১. বেশি বেশি প্রোটিন যুক্ত খাবার খান। ( চিকেন, মটন, বীফ খেতে হবে )
  • ২. পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমান। ( ৭/৮ ঘণ্টা)
  • ৩. একটা জিমের মেম্বারশিপ নিয়ে নিন।
  • ৪. একজন ভালো ট্রেইনারের পরামর্শ নিন।
  • ৫. নিয়মিত ব্যায়াম করুন।
  • ৬. তেল জাতীয় জিনিস পরিহার করুন।
  • ৭. ক্রিমি/ক্রিসপি জাতীয় জিনিস পরিহার করন।
  • ৮.বেশি বেশি সবুজ শাক-সবজি খান।
  • ৯. সুগার জাতীয় খাবার বাদ দিন।
  • ১০. কোনো ধরণের প্রসেসড ফুড খাবেন না। যেমন- জুস পাউডার, মিল্ক পাউডার।
  • ১১. ধুমপান বা মদ্যপান করার অভ্যাস থাকলে বাদ দিন।

১। বেশি করে খেতে হবে

আপনি যদি কম খাওয়ার কারণে চিকন হয়ে থাকেন, তবে ওজন বারানোর উপায় হিসেবে প্রথমেই খাবারের পরিমাণ বাড়াতে হবে। স্বাভাবিকভাবে আপনি প্রতিবার যা খেয়ে থাকেন, তার ৪ভাগের ১ভাগ পরিমাণ খাবার বাড়িয়ে খাবেন।

২। নিয়ম মেনে পেট ভরে খাবার খাবেন

মোটা হবার জন্য বারবার অল্প অল্প করে না খেয়ে ৩ ঘণ্টা পরপর ৩০০ ক্যালরির বেশী খাবার খাবেন। এতে আপনি শরীরের ওজন বাড়িয়ে মোটা হতে পারবেন। নিয়ম মেনে পেট ভরে খাওয়া হলে মেটাবলিজম এ হার কমে যায়, ফলে খাবারের ক্যালোরির অনেকটাই বাড়তি ওজন হয়ে মোটা হবেন। অল্প অল্প করে বারবার খাওয়াটা শরীরের মেটাবলিজম বাড়িয়ে দেয়, ফলে মোটা হওয়ার হার কমে।

৩। প্রতিবেলা খাওয়ার পর বিশ্রাম

রুগ্ন স্বাস্থ্যের পেছনে যেমন উচ্চ মেটাবলিজম হার দায়ী তেমনি মোটা হবার জন্য ধীর গতির মেটাবলিজম দায়ী। সুতরাং মোটা হতে চাইলে প্রথমেই মেটাবলিজম হার কমাতে হবে। প্রতিবেলা খাওয়ার পর একটি নির্দিষ্ট সময় বিশ্রাম করবেন। তাতে আপনার খাবারটা বাড়তি ওজন রূপে মোটা হওয়ার জন্য শরীরে জমার সুযোগ পাবে।

৪। বাদাম বা কিসমিস খেয়ে সকাল শুরু করুন

সকালে উঠে বাদাম বা কিসমিস খেয়ে সকাল শুরু করুন। ওজন বাড়িয়ে মোটা হওয়ার জন্য বাদাম আর কিসমিসের বিকল্প নেই।

৫। প্রতিদিন দুধ খাবেন

রাতের বেলা ঘুমাবার আগে অবশ্যই মোটা হওয়ার জন্য ননীযুক্ত দুধে মধু মিশিয়ে খাবেন। ফলে প্রতিদিন ঘুমাবার আগে এক গ্লাস দুধ খেলে পুষ্টিকর খাবারের ক্যালোরি টা খরচ না হয়ে বাড়তি ওজন হিসেবে আপনাকে মোটা হওয়ার সুযোগ দিবে।

৬। উচ্চ ক্যালোরি সম্পন্ন খাবার যোগ করুন খাদ্য তালিকায়

মোটা হওয়ার উপায় হিসেবে আপনার নিয়মিত খাদ্য তালিকার পাশাপাশি অবশ্যই উচ্চ ক্যালোরি সম্পন্ন কিছু খাবার যোগ করতে হবে। যদি উচ্চ রক্তচাপের সমস্যা না থাকে তবে নিচের খাবার গুলো অনায়াসে খেতে পারেন। যেমন- ডিম, ঘি/ মাখন, কোমল পানীয়, পনির, খাসির মাংস, চকলেট, আলু ভাজা, মিষ্টি জাতীয় খাবার, মেয়নিজ ইত্যাদি।

৭। শাক সবজি ও ফল খান

এমন অনেক ফল আর সবজি আছে যারা কিনা উচ্চ ক্যালোরি যুক্ত। যেমন- আম, কাঁঠাল, লিচু, কলা, বরই, আংগুর, তাল, বেল, তরমুজ, পাকা পেঁপে, মিষ্টি কুমড়া, মিষ্টি আলু, কাঁচা কলা, সিম, আলু, কচু, কচুর মুখি, বরবটি, কলার মোচা, বিট ইত্যাদি। মোটা হতে চাইলে বেশি বেশি উচ্চ ক্যালোরি যুক্ত ফল ও সবজি খেতে হবে।

৮। ফাস্টফুড খেতে পারেন নিশ্চিন্তে

মোটা হওয়ার জন্য খেতে পারেন ফাস্টফুড। ফাস্টফুডের খাবারগুলো বাস্তবেই অনেক সাহায্য করে মোটা হতে। তাই ওজন বারানোর জন্য মাঝে মধ্যেই খেয়ে নিন ফাস্টফুড।

৯। প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন

আপনার নিয়মিত খাদ্য তালিকার উচ্চ ক্যালোরি সম্পন্ন খাবার যোগ করে এবং সময়মত খাওয়ার পরও মোটা হতে না পারলে চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করুন। চিকন স্বাস্থ্য মোটা করার সহজ উপায় হিসেবে আপনি যাই করেন না কেন, কোনও সুপ্ত অসুখ থাকলে রুগ্ন ও ভগ্ন স্বাস্থ্যের সমস্যা থাকবেই।

১০। প্রতিদিন ৮-৯ ঘণ্টা ঘুমান

মানুষ ঘুমের মধ্যেই বাড়ে। মোটা হওয়ার জন্য অতিরিক্ত বিশ্রাম নিতে পারেন।এতে ক্যালরি কম খরচ হয়ে সোজা ফ্যাট হিসেবে জমা হয়ে মোটা হতে শুরু করবেন।

মন্তব্য করুন »
Sonjoy Kumar paul - ২৮, অক্টোবর, ২০১৯, ১:২৭ AM - উত্তর করুন

Thanks

একটি মন্তব্য করতে প্রবেশ বা নিবন্ধন করতে হবে।
Md Sorif - ২১, জানু, ২০২০, ৯:০১ PM - উত্তর করুন

Thanks you

একটি মন্তব্য করতে প্রবেশ বা নিবন্ধন করতে হবে।
Sagor Biswas SB - ০৪, মে, ২০২০, ১১:৩৪ PM - উত্তর করুন

thanks

একটি মন্তব্য করতে প্রবেশ বা নিবন্ধন করতে হবে।
Mahmud Osama - ১৪, জুলাই, ২০২১, ৫:২৩ AM - উত্তর করুন

Thanks

একটি মন্তব্য করতে প্রবেশ বা নিবন্ধন করতে হবে।

একটি মন্তব্য করতে প্রবেশ বা নিবন্ধন করতে হবে।

 

এই সম্পরকিত আরও »
লেখক সম্পর্কে »

বিবিসি ফ্লাই ওয়েবসাইটে বাংলা ভাষাতে আর্টিক্যাল লেখার মাধ্যমে আয় বা অর্থ উপার্জন করার একটি দুর্দান্ত সুযোগ করে দেওযা জন্য বিবিসি ফ্লাই কে ধন্যবাদ।

জনপ্রিয় পোস্ট »
০৮, জুলাই, ২০১৯, ২:১০ PM - বিবিসি ফ্লাই
১৬, অক্টোবর, ২০১৯, ৩:০৪ AM - মেসিলা ইয়াসমিন
২৫, জুলাই, ২০১৯, ৭:২৪ PM - লতিফা বেগম
সাম্প্রতিক লেখাসমূহ »
২২, আগস্ট, ২০২১, ৪:৫৭ AM - Aysha
১৪, আগস্ট, ২০২১, ৭:৫৮ PM - Aysha Biswas
২৩, জুলাই, ২০২১, ১১:৩৯ AM - Akhi Akber